অশ্বত্থ গাছ / সায়ীদ আবুবকর

তুমি সেই অশ্বত্থ গাছের মতো, একাকী দাঁড়িয়ে খাঁ খাঁ কোনো বিলের কিনারে;
সূর্যের উত্তাপে অতিষ্ঠ কৃষক কাজ ফেলে রেখে, বসে এসে তার শীতল ছায়ায়,
হুঁকো খায় সঙ্গীদের সাথে; ডালজুড়ে তার বাউল পাতারা বাতাসের তারে
ওঠায় তখন সুর পতপত পতপত; ভরে যায় চারদিক মধুর মায়ায়;

কখন পাতার ফাঁক দিয়ে বিকেল নামে-নেতিয়ে পড়া রোদ করে ওঠে ঝকমক;
ঘাস খাওয়া গরুর গা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে গাঁয়ের বউ তার গায়ে বুলায় নরম হাত;
দিগন্তের পাড় হতে ডানা ঝাপটিয়ে ঝাঁক বেঁধে উড়ে আসে পরিতৃপ্ত দিনান্তের বক
অশ্বত্থ গাছটির দুচোখে তখন উঁকি মারে প্রশান্তির মতো কুঁচ-কালো রাত;

ঝড়ো বাতাসে সে নাচে অন্ধকারে; তারপর অন্ধকার চিরে ওঠে যেই চাঁদ,
জোছনার জলে ভেসে যায় দিগি¦দিক, খাঁ খাঁ বিল মনে হয় অথই পাথার;
তখন একটিবার রূপকথার রাজকন্যা হওয়ার হয় তারও সাধ,
সাধ হয় জোনাকির মতো উড়ে যায় আর মহাশূন্যে সারারাত্রি কাটে সে সাঁতার;

প্রিয়তমা, আমার অশ্বত্থ গাছ তুমি- ছুঁয়ে আছো খাঁ খাঁ জীবনের তাবৎ তুচ্ছতা;
তীব্র দাবদাহে তুমি ছায়া, দিনান্তে পাখির মতো ঠাঁই আর রজনীতে রূপকথা।

৫.৩.২০১৬ সিরাজগঞ্জ

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s