সাহসী মানুষের কাতারে রেখো প্রভূ / সাইফ আলি

সাহসী মানুষের কাতারে রেখো প্রভূ
সত্য সন্ধানী হৃদয় দিও
বিপদে যেনো পা কখনো টলে না
হতে পারি যেনো তোমার প্রিয়।।

নিজের ভুলগুলো দেখার দৃষ্টি দাও
হৃদয় মেঘে ভরা প্রেমের বৃষ্টি দাও
বিনয় ঝরে যেনো মুখের ভাষায় আর
সত্য মেনে নিতে সাহস দিও।।

আত্মর রোগগুলো কুরে কুরে খায় সব
আমার এ মন কেনো করে না তা অনুভব?
বিবেকের প্রখরতা দাও…

তোমার দেখানো পথে চলার শক্তি দাও
তোমার কালাম মুখে বলার শক্তি দাও
তাগুতের ভয়ে যেনো পিঠ না দেখাই আর
কঠিন বিপদ এলে ধৈর্য্য দিও।।

২৯.০১.২০

অনুকবিতা ২৭ / সাইফ আলি

কি যে কামাই ক্যান যে কামাই
আমালনামায় হচ্ছে জড়ো কি যে;
সবার হিসেব ঠোঁটের ডগায়!
নিজের খবর রাখছি না কেউ নিজে।
জিভের তেজে থাকছে না হুশ
নিজের ছ্যাপে যাচ্ছি নিজেই ভিজে।

২৮.০১.২০

যেখানে থাকো তুমি / সাইফ আলি

আমার কথাগুলো তোমার কানে কানে পৌছে দেবে পাখি,
যেখানে থাকো তুমি আড়ালে যতোদূরে
থাকুক ফুলে ফুলে তোমার মাখামাখি।

যেদিন নদীতীরে কেবল সারি সারি যন্ত্র দানবেরা রবে
হাওয়ার বুক ভরে উঠবে বিষ-শ্বাসে; সেদিনও এই কথা হবে-
কুশুমে থাকো তুমি,দু’ঠোটে হাসি থাক লেগে;
তোমার গানে গানে উঠুক পৃথিবীটা জেগে।

২৭.০১.২০

অনুকবিতা ২৬ / সাইফ আলি

হয়তো বা এই শহরেই তার বসবাস
সে ছিলো যে কার জানতো না তার আশপাশ
ছিটেফোটা প্রেম না লেখা গল্পে মজে তার
কাটতো সময়, খুব ছোটোখাটো আবদার
শুনতো না কেউ দেয়ালে দেয়ালে বাজতো;
পূর্ণিমা রাতে একা একা তবু সাজতো।

২৬.০১.২০

খোকা খুকি এবং দাদুর ছড়া / সাইফ আলি

১.
নীলের বুকে আরেকটু নীল
মেললো ডানা দুরন্ত চিল
চিলের ঠোঁটে মেঘের কুঁচি
দুধ-পায়েশে খোকার রুচি।


আকাশটা কি? মস্ত ফাঁকা!
বুক পকেটে দশটা টাকা,
দশ টাকাতে কিনলো ফুল
ফুল খুকিটার লম্বা চুল।


মগডালে কি? মেঘের চুঁড়ো
দাদুর হাতে মাছের মুড়ো
চুষলো দাদু সড়াৎ স
পড়লো ঝরে বকের ব।

২৫.০১.২০

কিছু ভিন্ন ভিন্ন সুর / সাইফ আলি

কিছু ভিন্ন ভিন্ন সুর
আজ লাগছে সুমধুর
কিছু স্বপ্ন হেয়ালি
নিয়ে সঙ্গে বহুদূর
আমি যাচ্ছি হেটে আজ
তুমি সঙ্গি হবে কি??

এই রাত্রি ঘনঘোর
খুলে মর্তবা জুতোর
পথ মাপছে খালি পা
তুমি সঙ্গি হবে না??

এই রাত ফিরে ফিরে
যেনো আসে বারে বার,
আছে অন্ধকারে কি
বলো সঙ্কিত হওয়ার?

খুব চেনা এ পথ
পথিক পুরাতন
যদি সঙ্গি হতে চাও
এই হাত ধরো, এসো..
এই হাত ধরো, এসো..

18.01.20

খোলামেলা এই ভেজা স্বপ্নেই বিভোর হয়েছে দিন / সাইফ আলি

খোলামেলা এই ভেজা স্বপ্নেই বিভোর হয়েছে দিন
শাদামাটা রোদ প্রিজম দু’চোখে লাগছে কি রঙিন
এই রঙ মুছে মুছে নিঃশেষ হয়ে নামবে যখন রাত
তখনও ভাসবো রঙের ভেলায় যদি রাখো হাতে হাত।।

নৈরাশ্যের ঘন আঁধারের মেঘ ঠেলে ঠেলে চাঁদ
এনে দেবে ফের শত বিজয়ের আনন্দ সংবাদ
সেই সংবাদ শুনে আরো বহুগুনে বাড়বে মনের জোর
মিছিলে মিছিলে উঠবে সূর্য ফুটবে নতুন ভোর।।
ভেঙে যাবে সব জালিম শাহের ভঙ্গুর বিষদাঁত।

জানি অনাচার-জুলম কেবল পতনের সুর তোলে
মাটিতে তোমাকে নামতেই হবে বাতাসে সওয়ার হলে
তাই জালিমের ভয়ে চুপ করে থাকা আর নয় আর নয়
হাতে হাত রেখে প্রতিরোধ হবে, মানবো না পরাজয়।।
শুনবো শোনাবে সত্য করবো মিথ্যাকে উৎখাত।

08.01.20