রোজ সকালে যেই পাখিটা / সাইফ আলি

রোজ সকালে যেই পাখিটা ডাকতো বসে জানালায়
মাস ফুরালো আসলো না যে হারিয়ে গেলো কোথায়
পাখিটা আসতো গাইতো খেলতো একা কেউ ছিলো না সঙ্গী তার
কখনো হয়নি মনে এর আগে এতো আপন সে আমার।।

পালকে রঙ ছিলো কি নেয় মনে তা হয়নি দেখা ঠিক করে
বুঝিনি ছেড়েছে কখন যে সে আমাকে প্রেমিক করে
এখন কোন বনে যে মিলবে দেখা কোনখানে যে পাবো তার।।

জানালা রাখছি খুলে পর্দা তুলে কোনো বাধা নেই তো আর
এসেছে বৃষ্টি রোদ ঝড় তুফান আসেনি পাখি আমার
সময় স্রোত ভাসিয়ে নিস এ স্মৃতি, চাই না কোনো উপহার।।

২৬/০৯/২০

একে একে ভুলগুলো জমে গেছে সব / সাইফ আলি

একে একে ভুলগুলো জমে গেছে সব
এ বেলায় এসে তা মুছবে কে
পৃষ্ঠাতো প্রায় শেষ জীবন খাতার
কি ব্যথায় কাঁদছি তা পুছবে কে?

রঙ রঙ রঙ ছিলো দু’চোখে যখন
শাদা কাফনের কথা ভুলেছি
পুরো দুনিয়াটা যেনো ডেকেছে তখন
বিবেকের সব গিট খুলেছি।।
ভাবিনি এ ভুলগুলো মুছবে কে।

চলে যায় যে সময় সে তো আর ফিরবে না
ফিরবে না সে সময় কখনো
তবু ওগো রহমান, ও আমার রব
তুমি ছাড়া আর আমাকে বুঝবে কে?

সব রঙ ফিকে হয়ে গিয়েছে এখন
দুনিয়াটা লাগছে না ভালো আর
এ প্রদীপে কখনো জ্বলবে কি আলো
কাটবে কিনা জীবনের এ আঁধার।।
ভাবছি এ ভুলগুলো মুছবে কে।

২৪/০৯/২০

ছোট্ট একটা গল্প লেখা হয়নি এখনো / সাইফ আলি

ছোট্ট একটা গল্প লেখা হয়নি এখনো
সেই গল্পে তুমি আমি আর কে কে তা শোনো।।

আছে একটা কাঠবিড়াল
তার চারটা ক্ষুদে দাঁত
আছে একটা টুনটুনি
টুন টুন টুন সারা রাত।।
জিড়ায় না কখনো।

তুমি হাসছো আমি সত্যিই
সেই গল্প লেখতে চাই,
ভরা জোছনায় পাশাপাশি
বসে স্বপ্ন দেখতে চাই।।
তুমি চাওনি কখনো?

০৮.০৬.২২

এই রাস্তায় নেই কেউ নেই / সাইফ আলি

এই রাস্তায় নেই কেউ নেই
আমি একলা একাই হাঁটছি
আর ঘুম ঘুম গোটা শহরের
চোখে স্বপ্নের সুখ বাটছি।।

ও শহর ট্রেনের যাত্রী
আমি বিষণ্ণ এক রাত্রি
তুমি আমার বুকেই কান্না করো হাসো
আমি জানি তুমি আমায় ভালোবাসো।।
তুমি ঘুমাও আমি তোমায় ঘিরে রাখছি।

আমি পারবোনা দিতে জোনাকির প্রেম এনে
কোনো ল্যাম্পপোস্ট আজো নেয়নি তাদের মেনে
তবে উঠলে ছাদে আকাশ ছুঁতে পারো
আমি বন্ধুর মতো তোমার পাশে থাকছি।।

ও শহর ট্রেনের যাত্রী
আমি বিষণ্ণ এক রাত্রি
তুমি মুখোশ খুলেই আমার কাছে আসো
আমি জানি তুমি আমায় ভালোবাসো।।
তুমি ঘুমাও আমি তোমায় ঘিরে রাখছি।

০৮.০৬.২২

পুড়ে যাওয়া মেঘ / সাইফ আলি

পুড়ে যাওয়া মেঘ
উড়ে যাওয়া নাও
আমাকে তোমার
বন্ধু বানাও।।

কার দু’চোখের কাজল মেখে
পুড়ালে অমন নিজেকে
কার ইশারায় জমাট বাঁধো
বৃষ্টি হয়ে যাও!

যেই নদীটা বইছে একা
তার কাছে এই প্রেম নিয়ে যাও
বৃষ্টি ঝরাও… বৃষ্টি ঝরাও…
তার বুকেতে বৃষ্টি ঝরাও।।

যেই শহরের গরম পিঠে
প্রজাপতির পা পুড়ে যায়
তার কাছে এই প্রেম নিয়ে যাও
বৃষ্টি ঝরাও… বৃষ্টি ঝরাও…
তার দু’চোখে বৃষ্টি ঝরাও।।

যার বুকেতে ব্যথার পাড়ার
হও উপশম তার সাহারার
জমাট বেঁধে আসমানে তার
বৃষ্টি ঝরাও… বৃষ্টি ঝরাও…
তার কাছে এই প্রেম নিয়ে যাও।।

০৬.০৬.২২

আজ স্বজনহারার কান্না শোনাও পাখি / সাইফ আলি

আজ স্বজনহারার কান্না শোনাও পাখি
আজ স্বজনহারার জন্য তুমি ওড়ো
আকাশটা আজ কালো ধোঁয়ায় ছাওয়া
তুমি কান্না শেষে আবার কাঁদো, পোড়ো।।

আজ পথ চেয়ে কেউ থাকবে ভীষণ একা
কেউ মর্গে যাবে, স্বর্গে যাবে উড়ে
তুমি ক্যামনে খবর পৌঁছে দিবা পাখি
প্রিয়তমার প্রাণ যে যাবে পুড়ে।।
তুমি ক্যামন কোরে বলবে কবর খোড়ো?

পাখি গুটাও ডানা তোমার কিসের ঠেকা
যার হৃদয় আছে পুড়তে পারে একা;
তুমি কাঁদছো তবু তোমার চোখে পানি
প্লিজ বন্ধ করো শোকের কাব্য লেখা।।
কার লাশের পোড়া গন্ধ ভারে পোড়ো?

০৫.০৬.২২

হাঁটতে গিয়ে হয়না হাঁটা / সাইফ আলি

হাঁটতে গিয়ে হয়না হাঁটা
তোমার পথে অনেক কাঁটা
তোমায় মেলা ভার,
আমি তোমার দিকে তাকিয়ে থাকি
তুমি শূন্যতার।।

আকাশ আলোয় পূর্ণ হলে
সব অভিমান চূর্ণ হলে
তোমার দিকে হাত বাড়াবো
ভাবছি যখন এই
হারিয়েছি তোমায় আমি
তুমি কোথাও নেই।।
আমি অপেক্ষাতে আছি তোমার একটু ইশারার…

একটা নদী এঁকে বেঁকে পাহাড় হতে নেমে
হঠাৎ করে হারিয়ে গেলো সোঁদামাটির প্রেমে

সেই নদীটার দেখা পেতে
আর কতদূর হবে যেতে?
তুমি কি সেই নদীর ধারা
ভাবছি যখন এই,
সোঁদা মাটির গন্ধ আমার
বুকের গভীরেই!!
আমি অপেক্ষাতে আছি তোমার একটু ইশারার…

০৫.০৬.২২

অনুকবিতা ৪৪ / সাইফ আলি

কোন কারণে রাগ করো মন
কোন কারণে কষ্ট পাও
ইচ্ছে করেই ভাসাও যখন
উল্টোস্রোতে তোমার নাও।

০৪.০৬.২২

রূপকথা / সাইফ আলি

:এক দেশে এক রাজা ছিলো
তার ছিলো এক রাজকুমারী;
রাজকুমারী পরীর মতো…

:আচ্ছা বাবা ওসব রাখো
যেই পরীটা ট্রাকের নিচে
সেদিন বসে চাল কুড়োলো
তার কি হলো?

ছবি: জাহিদুল করিম

আমি একলা চলার ফন্দি এঁটে বের হয়ে / সাইফ আলি

আমি একলা চলার ফন্দি এঁটে বের হয়ে
বন্দী হলাম তোর দুঠোঁটের বক্রতায়!
বৃক্ষ হওয়ার স্বপ্ন বুকে বের হয়ে
লতার মতো জড়িয়ে গেলাম তোর মায়ায়;
এখন আমি কোথায় গিয়ে মুখ লুকাই?

দু’চোখের আকাশে তোর চিল হয়ে
এ কেমন বৃত্তে আমি থমকে গেলাম,
মেঘে রোদ্দুরে হঠাৎ বৃষ্টি হয়ে
উঠোনে নেমেই ভীষণ চমকে গেলাম!
আমি কি পেলাম তোকে! তুই কোথায়?

কখন হয়নি এমন দিনগুলো
হেঁটেছি অনেকটা পথ এই পথেই;
যেনো এক দিকভোলা নাও কূল খোঁজে
একাকি উথাল পাথাল সমুদ্রে!
আমি কি পেলাম তোকে! তুই কোথায়?

০১.০৬.২২