খুকুমণি জানো / সাইফ আলি

খুকুমণি জানো
চাঁদ কতো দূরে
কতো দূরে তারা
কতদূর থেকে তারা করছে ইশারা?

কতদূরে আসমান
কতদূর গেলে
এই মহাবিশ্বের সীমারেখা মেলে?

খুকুমণি চিন্তার সীমানা কি জানো?
ভাবো দেখি পাখিদের ডানা ঝাপটানো
কিংবা ফুলের ঘ্রাণ, মাছের সাঁতার!
কতোটুকু পরিচয় দিলো স্রষ্টার?

খুকু সেই স্রষ্টার প্রিয় হতে চাও?
তবে তাঁর আলো দিয়ে নিজেকে সাজাও।

30.06.19

নাটক / সাইফ আলি

বিচারকের জলসা ঘরে
নাটক চলে নাটক,
সাবধানে খুব বিবেকটাকে
রাখতে হবে আটক।

সাবধানে পা ফেলে
একটু আওয়াজ তুলতে হবে
সময় সুযোগ পেলে,
তা না হলে মানবতার
দূত হওয়া কি সাজে!
কথাই আছে খালি কলস
ঠনঠনিয়ে বাজে।

29.06.19

ফিঙে কেমন রাজা / সাইফ আলি

লাল গরুটার শিঙে
বসলো রাজা ফিঙে
শুনছি নাকি পছন্দ তার
লাউ, করলা, ঝিঙে!

ফিঙে কেমন রাজা
খায়না পোলাও, কোরমা, লুচি
খায়না ইলিশ ভাজা;
বেজায় খুশি কেউ যদি দেয়
একটু তিলের খাজা!!

29.06.19

অত ভালোবেসোনা আমাকে / সাইফ আলি

অত ভালোবেসোনা আমাকে
যত ভালোবাসলে মৃত্যুর কাছে পরাজয় হয়
সত্যকে মেনে নিতে ভয় হয়।।

যে ভালোবাসা পেয়ে চাঁদ সে লুকায় ঐ আড়ালে মেঘের
যে ভালোবাসা পেয়ে সংগ্রাম মিছে হয়ে যায় মানুষের
সে ভালোবাসা আমি চাইনা তোমার;
সে ভালোবাসা আনে পরাজয়।।

………………….. (অসমাপ্ত)

23.06.19

তবু আলো এসে যায় / সাইফ আলি

তবু আলো এসে যায়
এই বন্ধ জানালায়
এই মন বেঁচে থাকে
সেই আলোর ভরসায়।।

হায় চোখ ফোটেনি তার
সে অন্য কারো দায়,
তবু তার জীবনের রোদ
পড়ে আমার সীমানায়।।

আজ চাঁদনি রাতো না
নেই সঙ্গে কারো হাত
তবু জ্বলছে জোনাকি
যাবো পার হয়ে এই রাত।

যদি আছড়ে পড়ে ঢেউ
সব চিহ্ন মুছে যায়
দেবো নতুন পায়ের ছাপ
সেই বালু্র বিছানায়।।

21.06.19

ছিলে পথের প্রান্তে দাঁড়িয়ে / সাইফ আলি

ছিলে পথের প্রান্তে দাঁড়িয়ে
হাতে হাসনাহেনার ছেড়া ডাল,
চোখ মেঘলা আকাশ পুরোটাই
ঠোটে ঝুলে আছে নতুন সকাল।।
19.06.19
 
একা যেনো এক সিংহের দায়
ছিলো তোমার কাধেই করে ভর
আর খাপছাড়া শেয়ালের পাল
শুধু মাপছিলো সময়ের জ্বর।।
আর সূর্যটা উঠছিলো যেনো
সারা গায়ে মেখে রক্তের লাল।
 
যুদ্ধ ফেরত কোনো এক
প্রজাপতি পাখনার ঝাঁঝ
নাকে এসে লাগছিলো খুব
যেনো বার বার যুদ্ধেই ডুব।
09.10.19

এলোমেলো বাতাসে মন এদিক সেদিক ধায় / সাইফ আলি

এলোমেলো বাতাসে মন এদিক সেদিক ধায়
মন থাকেনা থাকেনারে চোখের সীমানায়
মনের কষ্ট কত যত শত পোড়ায় বারোমাস
মন খেলাপী পাপি-তাপি দেহের করে চাষ।।

রোগ নিরাময়, সজ্জা চলে বাহির বাটি ঘিরে
অন্দরে কেউ ডুকরে কেঁদে মরে
ও তার কান্না শুনে কেউ এলো না
কাঁদলো মরার পরে।।
মনের এমনতর দায়…

ও তার সঙ্গা দিতে, ভাব বোঝাতে পারলো ক’জনাই
একেক জনের কাছে মনের একেক ধারা রায়।

………………………..
………………….. (অসম্পূর্ণ)

19.06.19