একান্ত বাক্যেরা-২৫ / সাইফ আলি

ফুলেরা সুখি হবে
পাখিরা মেলে দেবে ডানা
শঙ্খ সুখ নিয়ে ভীষণ দৌড়োবে
মিলবে হারানো ঠিকানা।

আঁধারে জোনাকিরা জ্বলবে মিটিমিটি
যেনোবা আকাশের তারা
হঠাৎ খসে পড়ে ঝাওয়ের বুকে পিঠে
অবাক সুখে দিশেহারা।

হালকা এলোমেলো বাতাস বয়ে যাবে
দুলিয়ে শিউলির মোহ,
আমি তা চোখ বুজে মাখবো সারা দেহে
ঘুমোবে জ্বলে থাকা দ্রোহ।

25/10/18

Advertisements

রাতে ফের কথা হবে / সাইফ আলি

রাতে ফের কথা হবে আমাদের
জোছনার আলো মেখে সারাগায়
দাঁড়িয়ে থাকবো আমি একা,
শিউলীর ঘ্রাণ নিয়ে
তুমি এলে বাতাসের শাড়ি গায়
দুলে উঠে কাশবন জানাবে;
কি পোশাক পরে আমি আসবো
শাদা পাঞ্জাবী হলে মানাবে?

রূপোর থালার মতো চাঁদটা
নদীজলে সাঁতরাবে সারারাত
আমি হবো নাওছাড়া মাঝি আর
তুমি হবে দাঁড়বাওয়া দুটো হাত।

বকুলের ঘ্রাণ / সাইফ আলি

খুব বেশি কাছাকাছি এলে
নাকে লাগে বকুলের ঘ্রাণ
চোখ বুজে দম নিই
যতটা বাতাস আটে ছোট্ট এ বুকের পাঁজরে,
ফজরের নামাজের পর
আমাদের রাস্তার মোড়
মজে থাকে বকুলের প্রেমে।

খুব বেশি কাছাকাছি এলে
মনে হয় আমি
মাত্র নামাজ শেষে
দাঁড়িয়েছি এসে
বকুলের ঘ্রাণ নিতে
আমাদের রাস্তার মোড়ে
বেশিক্ষণ থাকবো না,
চলে যাবো; বুকে নিয়ে তোমার সুবাস!

মা / সাইফ আলি

চোখের কারিসমা তোমার
অল্পেই বুঝে ফেলো সব
অনুভুতি প্রখর তোমার
সহজেই করো অনুভব!

যাকিছু মলিন ছিলো
তোমার ছোঁয়ায় ওঠে হেসে
তবু তুমি এভাবে আচলে
কেনো ঢাকো মুখ? অবশেষে
তোমাতেই তৃষ্ণা মিটাই;
তুমিই জলধি মাগো
তোমাতেই প্রান ফিরে পাই।

একান্ত বাক্যেরা-২৪ / সাইফ আলি

ভাবছো তুমি ভাবছে না মন তোমার কথা
কেনো এমন ভাবনা তোমার আমার নিয়ে
আমার যে আর অন্য কাজে বসছেনা মন
তোমার নিয়ে হর-হামেশা ভাবতে গিয়ে।

একান্ত বাক্যেরা-২৩ / সাইফ আলি

হাজার গল্প এক কবিতার উপমায় মেলে যেখানে
সেখানে তোমার চোখ
আমি উপন্যাসের ডায়রিতে লেখি ছড়া
তুমি পড়ো, তুমি কি পড়ো?

কি নাম যে তার / সাইফ আলি

কে ছিলো হাতের মুঠোয়
অন্য হাতে জাদুর কাঠি
চোখে কে কাব্য ছিলো
ঠোঁটের আফিম কার ছিলো তা
কে ছিলো সরল সুখে এবং সরল বিষণ্নতায়।

কে ছিলো হৃদয় গলে হুড়মুড়িয়ে ক্লান্ত সময়
পায়রার ঢং নিয়ে কে ঘাঁড় বাঁকিয়ে, কি নাম যে তার!!?