সমস্যাটা জটিল বড় / সাইফ আলি

সমস্যাটা জটিল বড়
রঙ তামাশার সুমায় না,
রাত্রি জেগে পার হয়ে যায়
একটুও সে ঘুমায় না;

চিন্তা কিসে? বললে পোলা
তাকায় থাকে আনমনে,
দশজনে কয় বাড়ছে বয়স
হয়তো কারো টান মনে।

কিন্তু পোলার চুল পেকে যায়
চাকরি পাবার টেনশনে,
ফেসবুকে তার খবর মেলে
‘নতুন আদু’ মেনশনে।

বি সি এসের চক্করে তার
মুখস্থ সব দেশ-বিদেশ,
তবু পোলার জ্ঞান বাড়ে না
পড়া লেখার হয়না শেষ।

বত্রিশে তার চাকরি পাবার
খবর পেয়ে বাপজানের
নড়বড়ে হার্ট থমকে দাঁড়ায়,
খুশিই ছিলো পাপ জানের!

পোলায় এখন চাকরি করে
বিয়ের কথা ওজন পায়,
বন্ধু লোকের ছোট্ট দাবি
চমকপ্রদ ভোজন চায়।

বাজেট শুনে পাঁচ বছরের
সঞ্চয়ে তার বাশ পড়ে,
পোলার চুলে পাক ধরেছে
গভীর দীর্ঘশ্বাস পড়ে।

Advertisements

ভয় / সাইফ আলি

ভয় হয় যদি ক্ষয় হয় পা
তাই হাঁটতে মানা
ভয় হয় যদি ক্ষয় হয় দাঁত
তাই গিলে খাই ভাত
ভয় হয় যদি দৃষ্টি হারায়
তাই চোখ মেলি নাই
ভয় হয় যদি হাতটা বাড়াই
আর পড়ে ভেঙে যায়
ভুল হবে ভেবে বলিনি কিছুই
বোবা বলো তাও
শুনিনি কখনো তোমাদের
যদি গল্প বানাও
খরচ করিনি কোনোটাই
যদি ফুরিয়েই যায়,
কি হবে তখন শেষশেষ
যদি বুড়িয়েই যাই!!

ভুল ঠিকানায় / সাইফ আলি

:ভুল করে সে ভুল ঠিকানায়
নক করেছে,
মিষ্টি কথা তাইতো হঠাৎ
টক করেছে…

কিল ঘুষিতে ভোজ সেরেছে
কুত্তামারা ডোজ মেরেছে
চেহারাটার সেপ পাল্টে
নতুন কিছু ঢক করেছে।

:আহহা রে ইশ
উনিশ কি বিশ!!
তাতেই এমন!!
শুনেই আমার কলজে পোড়া
শক করেছে।

প্রেম ভাগাও / সাইফ আলি

প্রেমের সদায় করলো মরদ
দরদ দিয়ে তাইতো তার
প্রেম ছুটিলো সবার আগে
পয়সাভাবে গেরেফতার!

এই জামানার প্রেমিক মিয়া
নাট-বল্টু ঢিলা নি,
কয়েক দফা পাগলা গারদ
ইতিপূর্বে ছিলা নি?

ইদানিংকার প্রেম-পিরিতি
জমছে নাকি মার্কেটে,
মার্কেটিং এ ডিগ্রি তোলো
নয়তো প্রেমের তার কেটে

অন্যখানে মন লাগাও;
প্রেম ভাগাও।

নিজের সাথে / সাইফ আলি

স্বপ্ন আমার সাথ দিলো না
আপোষে কেউ হাত দিলো না
তবুও কোনো রাত ছিলো না একা
নিজের সাথে নিজেই আমি রোজ করেছি দেখা-
:কি রে বেটা কেমন আছিস
চলছে তো দিন ভালো,
শুনছি নাকি হাত রাখেনি
তোর কাঁধে সে কালও!
কেমন চিপায় পড়লি বেটা
চওড়া করে সিনা,
আজ অবধি সামনে যেয়ে
দাঁড়াতে পারলি না।
:কি করবো তুই বল
এক জীবনে আমিই নায়ক
আমিই যখন খল।

পুচ্ছ নাচায় কারা / সাইফ আলি

কাকের শোকে মিছিল হবে
কোকিল ডাকে কুহু
পেঁচায় ডাকে সেই আমোদে-
মিছিল দিবা? উহু (না)

পশম তুলে পেখম বলে
পুচ্ছ নাচায় কারা?
সত্যটাকে সত্য বলে
মানতে নারাজ যারা।

আর কি কি শেখাবেন / সাইফ আলি

আর কি কি শেখাবেন
দেখাবেন, শোনাবেন;
কত ধানে কত চাল
সেটাও কি গোনাবেন?
বলবেন, ডলবেন
চলবেন নিজেদের ইচ্ছায়…
আমরা খাঁচার তোতা
শেখানো বুলিতে মজে গান গাই-
এমনটা ভাববেন, ভেবে নেন
দোষ নেই,
কিন্তু ভাবেন যদি গোখরোর ফণা নেই
ফোস নেই,
তাহলেই মরবেন
দুইকান ধরবেন
উঠবস করবেন
লাভ নেই;
জনতার সাথে যার ভাব নেই।

ভরসাটা ভেঙেছেন
দুই হাত রেঙেছেন রক্তে,
স্বার্থের মোহে বড় মেতেছেন
ক্ষমতার তখতে।

ইতিহাস বার বার ঘুরে ফিরে বলে যায়
জালিমের ঠাই নাই ঠাই নাই,
তবুও জালিম যারা মিথ্যে ঘোরের পাকে
সত্যের দেখা জানি পায় নাই।

শিক্ষা / সাইফ আলি

বই কেড়ে নিস মই কেড়ে নিস
রাস্তা দেখাস ভুল,
বই পড়াতেই খুলিস আবার
নতুন এক স্কুল-
এ বই তোদের থিউরি মানে
এ বই তোদের খাস,
তাইতো দেখি এ বই পড়ে
দুর্নীতি হয় চাষ।
এ বই শেখায় পরের মাথায়
ক্যামনে মারে বাঁশ…

শিক্ষা যদি শিক্ষা দেবে
কলমের এক খুঁচায়
ক্যামনে মারে পয়সা-কড়ি
ক্যামনে ওঠে উঁচায়;
কেমন করে তেলির পাছায়
তেল দিয়ে সব ছুচায়-
তাহলে আর শিক্ষা নিয়ে
কি লাভ বারমাস?
শিক্ষিতরাই আজকে দেশের
করছে সর্বনাশ।

সে ছিলো এক গাঁয়ের চাষা / সাইফ আলি

একটা বাশের বাঁশির বুকে
বাজলো নানান সুর,
একটা পাতার শরীর জুড়ে
ঝলমলে রোদ্দুর-

সেই বাঁশি সেই পাতার সাথে
সখ্য ছিলো যার
সে ছিলো এক গাঁয়ের চাষা
চিনতো না কেউ তার।

কিন্তু যখন তার ফলানো
প্রেমের ফসল ওঠে,
সেই জিতে যায় ভালোবাসার
মুচকি হাসি ঠোঁটে।