ম্যাজিক / সাইফ আলি

মুঠো খুলতেই ম্যাজিক
মুঠো খুলতেই ফাও
দেখি দেখি একবার সকলেই একসাথে
মুঠো খুলে দাও।

মুঠো করে কেউ কলার
কেউবা আবার ডলার
কঠিন কথা বলার
পণ করেছো,
আগে ছাড়ো, দ্যাখো ম্যাজিক
দ্যাখো; দেখেছো?

Advertisements

সমসাময়িক / সাইফ আলি

প্রকাশ্য চুম্বনে তারা আজ স্বীকৃত সাহসী যুগল!
এ কেমন বিচার হে প্রিয়!!
এর আগে বহুবার এখানেই টি এস সি মোড়ে
প্রকাশ্য সঙ্গমে মেতেছিলো নিরিহ কুকুর…

তাদের তো ঘর নেই; নেই কোনো পোশাকের বেড়া,
বিবেকের, বোধের শাসন;
তারা তো কখনো এসে সভ্য কুকুর বলে
নিজেদের করেনি জাহির!

সাহসের তারিফ তো করবোই,
নুরুর সাহস আছে, রাসেদরা সাহসী তরুণ;
অধিকার আদায়ের সংগ্রামে ফুঁসে ওঠা প্রাতিটি যুবক।
তোমরা ভীরুর দলে, বিবেকের মুখোমুখী হতে
মননের মুখোমুখী হতে
তোমাদের ভয় হয় জানি।

ক্ষমতার দাপট তোমার! / সাইফ আলি

ক্ষমতার দাপট তোমার!
আশ্রিত গোলামেরা এরকম ভুলভাল ভাবে
তাদের চোখের সীমা এতটাই ভোতা
আয়নায় নিজেকে দেখেনা!
পিঠে কারো বাহবার হাত
গোলামির শিকল দু’পায়ে
ধারালো অস্ত্র হাতে লাল চোখে চেয়ে থাকে
নিরস্ত্র জনতার চোখে
ভুলে যায় নিজের কাতার…!!

তুমি যার মসনদ জোরে
নিজের কাতার ছেড়ে দাঁড়িয়েছো মুখোমুখি আজ
সে তোমার পিঠে রেথে হাত
বাহবা দিচ্ছে ভাবো? তুমি বড় বোকা!!
সে তোমার পিঠে রেখে হাত
আসমান ছুঁতে চায়,
স্বর্ণলতার মতো চকচকে পরজীবি সেও…

ক্ষমতার দাপট তোমার!
দৃষ্টির সীমানা বাড়াও
অলস দুপুরে তুমি একা এক কুকুরের মতো
অসহায় নিজেকে তাড়াবে…
36522091_1016798168489603_8489916052195508224_n

সুন্দর কাকে বলে / সাইফ আলি

সুন্দর কাকে বলে জানো?
সুন্দর শিশুটির মুখ, হাতের আঙুল; যখন সে শরীরের সমস্ত শক্তির জোরে ধরে রাখে মায়ের জগত…
কিংবা পিতার বুকে খুঁজে নেয় আদরের ভুঁই।
সুন্দর পাখিদের বাসা, পাতায় জড়ানো তার ছানার আওয়াজ,
প্রথম উড়তে শেখা, উড়ে যাওয়া প্রথম প্রহর; সুন্দর সবই।
সুন্দর মাছেদের চোখ, লেজ আর শরীরের যাবতীয় কৌশল সব-
সুন্দর ফুল, যখন ওলিরা আসে; ছুয়ে দেয়, সারাগায় পারাগের গুড়ো মাখে, তারপর অন্য কোনো ফুলে ঘুরে ঘুরে রেখে আসে জীবনের সুপ্ত রসদ-
সুন্দর যুবতীর বাহু, যুবকের উদোম শরীর; কর্ষিত জমিনের পাড়,
বোপনের সুখ, ব্যথা সব।
সুন্দর প্রেয়সীর চুল, বর্ষায় ভেজা; কদমের ঘ্রাণ-
সুন্দর কাকে বলে জানো?
মাঝে মাঝে মৃত্যুও হয়ে ওঠে তুখড় উপমা…

আহত / সাইফ আলি

আহত চোখ তার দেখেনা নীলাকাশ
যতই বড় হোক বুকের পাটাতন
আহত হাত তার ছোঁয় না শাদাকাশ
যতই অনাবিল হোক সে কাশবন।

আহত ঠোঁট তার বলেনা কথা আর
বুকের অন্দরে দ্বন্দ্ব সংঘাত,
আহত আঙ্গুলে ব্যথার সংসার
ফুলের পাপড়িও ছোঁয় না ভীরু হাত।

আসলে আহত সে মনের হীনতায়
তাইতো কেঁদে মরে অশেষ দীনতায়।

বেপোরোয়া প্রজাপতি / সাইফ আলি

যদি ডাকো
বৃষ্টিতো আসবেই
মেঘমালা হুড়মুড় লুটোপুটি খাবে
এমনটা ভেবে আছো বসে;
এদিকে তোমার সব ভিটেমাটি
সামান্য স্রোতে যায় ধ্বসে!

ওগো মহারানী…
দাসেরা তোমার রূপে বিগলিত হয়;
বেপোরোয়া প্রজাপতি কোনোদিন ফিরেও দেখেনা!

ভুল / সাইফ আলি

এ হাতে রঙ ছিলো না তোমায় দিতাম,
যা ছিলো পাংশু কেবল বিষন্নতা;
কি ভুলে বলতে গেলাম মনের কথা
কেনো যে ডুবতে গেলাম পুশকনিতে,
যদি তা সাগর হতো, তাও মানাতো।