নারী নদী ও নিসর্গে / ফজলুল হক তুহিন

[কবি আল মাহমুদকে]

নারী নদী ও নিসর্গে কিভাবে আপনি পান বিশ্বাসের ঘ্রাণ?
কিভাবে দেখতে পান মিথ্যাবাদী রাখালের মতো ভবিষ্যৎ!
কী করে সাহসী হন পালক ভাঙার প্রতিবাদে সুবৃহৎ!
ভাবতেই এসব হই বিস্মিত, রঞ্জিত- আশাবাদী হয় প্রাণ।

বখতিয়ারের সেই দীপ্ত ঘোড়ার ক্ষিপ্র খুরের শব্দ শুনি
যখন মায়ের মতো শোনান গল্প, দেখান স্বপ্ন; আকাঙ্ক্ষিত
স্বদেশের জন্যে আমি যখন শ্লোগান তুলি, বিপুল প্রাণিত
করেন, আশ্বস্ত হই- কৃষকের মতো বিশ্বাসের বীজ বুনি।

জীবনের যুদ্ধ, প্রেম ও আদিম কামনার স্বচ্ছ বর্ণচ্ছটা
সবুজের মতো প্রাণময় করে সেলাই করেন ক্রমাগত,
বোধের উৎস খুঁজে পাই অতীত ও রহস্যের সবকটা
দরজা খোলেন দক্ষ দু হাতে যখন। দুঃখ মৃত্যু অবিরত
ঝরে পড়ে কড়ই পাতার মতো। জীবন্ত স্বপ্নের সানুদেশে
তাই আপনার সাথে পৌঁছবো পেছনে ফেলে সব সর্বনেশে।

১২.০৭.১৯৯৯