নারী তুমি কোনোখানে নিরাপদ নও / সাইফ আলি

নারী তুমি কোনোখানে নিরাপদ নও
তোমার শরীর বেঁচে রাতের শরাব কেনে পুজিপতি শেয়ালের দল
শিল্পীরা চড়া দামে তোমাকে বেঁচেই খায়
কবি হয় নন্দিত তোমার শরীর এঁকে নানা উপমায়।
নারী তুমি জরায়ুর মালিকানা নিয়ে
শামুকের মতো কেনো নিজেকে গুটাও?
কখনো প্রেমিকা তুমি কখনো বা মা!
চতুর বেনের দল তোমাকে বেঁচতে চায় তুমি বোঝো না?

০৩.১০.১৯

বললো রাজা হেসে / সাইফ আলি

বললো রাজা হেসে-
‘ভিন্নমতের চিহ্ন যেনো না থাকে এই দেশে-’
ঝাপিয়ে পড়ে রাজসেনারা ভিন্নমতের খোঁজে
তাই দেখে কেউ ঠোস পরে কেউ সাবধানে ঘাড় গোঁজে,
কিন্তু কিছু আগ্নেগীরির বেরিয়ে আসা লাভায়
ভয় ঢুকে যায় রাজার বুকে, ভীষণ করম ভাবায়।
ভাবনা শেষে চেঁচিয়ে বলে- ‘বন্ধ করো মুখ-’
বন্ধ হলেই শান্তি রাজার, বন্ধ হলেই সুখ।

08.10.19

তবু কিছু পাখি / সাইফ আলি

এখানে রাতের পর ফের নামে রাত
দিনের ইমান নিয়ে তবু কিছু পাখি 
ঝাপটায় ডানা
এরা কোনো হতাশার পঙ্ক্তি জানেনা।

এখানে বেসুরো গান, চাটুকার কবির কলম
ঘিরে রাখে বিবেকের ঘের
তবু কিছু সত্যের চাষাবাদ ঘিরে
বেঁচে থাকে হেরার পাখিরা।

22.02.19

ঘুনপোকা / সাইফ আলি

ঘুনপোকা ঘুনপোকা ঘুনপোকা
হাশফাশ নগরীর বোকাসোকা লোকেদের চেয়ারের হাতলের ঘুনপোকা
বের হয়ে আয় তোরা ঐসব চেয়ারের নে দখল
নীতিহীন জালিমেরা যে চেয়ার করে আছে বেদখল।

যে চেয়ার এনে দেয় জুলুমের অধিকার!
যে চেয়ার লোভীদের স্বার্থের হাতিয়ার
সে চেয়ার অধিকারে নিয়ে নে
কুড়ে কুড়ে খেয়ে ফেল চেয়ারের পায়াগুলো ভেঙে যেনো পড়ে যায় মাটিতে
তারপর হানা দিস আলমিরা সোফাসেট কালো টাকা গয়নার ঘাটিতে।

ঘুনপোকা ঘুনপোকা ঘুনপোকা
বোকাসোকা মানুষের চেয়ারের হাতলের ঘুনপোকা
বের হয়ে আয় তোরা নে দখল
যে চেয়ার হয়ে আছে বেদখল।

09.01.19

নিখোঁজ / সাইফ আলি

অমক নিখোঁজ তমক নিখোঁজ
নিখোঁজ গোটা দেশটা
এত্ত সহজ পাল্টে ফেলা স্বৈরাচারী বেশটা?

শকুন কি আর ভাগাড় ছেড়ে
সভ্য হবে ভাই রে 
মড়ার খোঁজে ঘাড় গুঁজে সে
মুখ ফেরানো দায় রে।

এই শকুনের বসত ভিটে
খোঁজ করে দে পুড়াইয়া;
আর কতকাল চলবে এ দেশ
লিমন হয়ে খুড়াইয়া?

স্বৈরাচারের জবাব দিতে পারিস যদি দাঁড়াইতে
আর হবে না গুমের দেশে সোনার দামাল হারাইতে,
কিন্তু যদি ঘরের কোণে মুখ লুকিয়ে বাঁচতে চাস
বদলাবে না বদলাবে না স্বৈরাচারের এই বাতাস।

21.12.18

শব্দগুলোকে সামলিয়ে রাখো / সাইফ আলি

শব্দগুলোকে সামলিয়ে রাখো কবি
উপমার দায় এড়াতে পারো কি ভেবো
যথাপোযুক্ত উপমার অনাহারে 
শাদা কালো হয় কালো হয়ে যায় শাদা।

শব্দগুলোকে সামলিয়ে রাখা দায়
ভুল নিশানায় ছুড়ে দেওয়া কোনো তীরে
অর্জিত হয় কাঙ্খিত ফলাফল?
খুব সাবধান, খুব সাবধানে কবি…

চাটুকারিতার সাময়িক লাভে ভুলে
উম্মাদ যদি এ অস্ত্র নাও তুলে
খুব পস্তাবে, খুব পস্তাবে কবি
নাশ হয়ে যাবে শব্দের বিভ্রাটে।

24.11.18

আল্পনা / সাইফ আলি

আন্দাজ নেই কোনো
পথের সীমানা নেই জানা
যেখানেই রাত হবে
সেখানেই বিছাবো মাদুর
টাঙাবো জাদুর সামিয়ানা।

শিশিরে ভেজাবো চুল
জোসনায় ধোবো ভুল
তারপর তারারা কথক;
শুনবো অবাক চোখে
কিভাবে রাত্রিলোকে
বুদ হয় মায়াবতি প্রকৃতির শ্লোক।

পাতারা কি আশা নীরে
ভিজবে সারাটা রাত
ওৎপাতা মাকড়ের জাল চুয়ে নেমে যাবে
শিশিরের পরিণত কণা,
রাত্রি সাজবে আর সাজাবে নিখুঁতভাবে
দিবসের সব আল্পনা।

09.11.18