প্রিয়তমা / সাইফ আলি

কতো মূল্যে তুমি খুললে তোমার মনের দরজাটা
আমি গরীব কৃষক চাষবাস করে জোটাই খরচাটা
আমার সামর্থ্য নেই তদবির করি, লেখাপড়াটাও অল্প
তাই মুখে পুরে আজও জাবর কাটছি তোমার শেখানো গল্প
প্রিয়তমা, বহুদিন হোলো খবর তো নিলে না
আসলে তুমি তো কোনোদিনই এই গরীবের ছিলে না।

শিল্পপতির কদর বুঝলে আমলার বুকে শান্তি খুঁজলে
তন্ত্রে মন্ত্রে কে তোমার চেয়ে ভালো?
প্রিয়তমা, তুমি আঁচলে তোমার বুদ্ধিজীবীও পালো!
আগে এমন তো ছিলে না,
নাকি আমিই দেখেছি ভুল,
তুমি ফেস্টুন হাতে স্লোগান তুলতে ভুখার মিছিলে না?

তুমি চায়ের চুমুকে সতেজতা পাও, তৃষ্ণা মিটাও রক্তে
যেভাবেই হোক অধিকার চাও পরিচালকের তখতে;
হাজার পুরুষ তোমার জন্য লড়াই করেই ধন্য
আমি কাপুরুষ অজপাড়াগাঁর কৃষক, খুব নগন্য!
প্রিয়তমা,
আসলে তুমি তো কোনোদিনই এই গরীবের ছিলে না।

প্রিয়তমা, তুমি পুঁজিপতিদের বিবি হতে চাও, এতে কোনো আফসোস নেই
কেনো বার বার বলো, গরীব তাতে কি! স্বপ্ন দেখতে দোষ নেই!!?
তুমি স্বপ্ন দেখিয়ে ঘুমাতে পাঠাও শস্যের গোলা লুটতে;
ইশ, কোনোদিন যদি সত্যিকারের ফুল হয়ে তুমি ফুটতে!
প্রিয়তমা…

২৭/০৮/২২

প্রিয়তমা / সায়ীদ আবুবকর

গজনির সুলতান হয়ে ছুটেছি স্বপ্নের দেশে, লুকিয়ে হৃদয় ভীতু-
কুসুমেরা বাড়িয়েছে ঠোঁট চুমা দিতে করতলে,
সরিয়ে নিয়েছি হাত। বন্দরে বন্দরে বহু হেঁটে আর সাঁতরিয়ে বহু জলে,
অবশেষে, প্রিয়তমা, তোমাতে হয়েছি থিতু।

তোমাতে দিয়েছি ডুব, ভাবিনি কী পরিণতি-
দেখতে চেয়েছি ডুব দিয়ে কত দূর জীবনের তল;
যখন প্রণয়ে মজে হয়ে যায় হৃদয় চঞ্চল
কে খোঁজে তখন, হায়, কী লাভ কী ক্ষতি!

ধুলাতে গুড়িয়ে দিয়ে বহু দেশ-মহাদেশ আর তার রাজধানী
যেভাবে তৈমুর লঙ ফিরেছিল সদর্পে, সমরকন্দে;
উত্তাল আনন্দে
সেইভাবে ফিরেছে আমার মন তোমাতে, হে রানী।

তুমি বসে থাকো পাশে, নির্নিমিখ আমি দেখি তোমার নয়ন
টাইটানিকের মতো যেখানে গিয়েছে ডুবে শরীর ও মন।

৭.৩.২০১৬ সিরাজগঞ্জ