কাকাবাবু / সাইফ আলি

কাকা কালো সানগ্লাস
কাকি পরে হাইহিল
কাজিনেরা আধুনিক
ড্রেস পরে পায় ফিল।

কাকা কালো বাজারের
রাজা, কাকি রাণী মা,
কালো টাকা শাদা কোরে
ভরে ফুলদানী, বাহ!

কাজিনেরা ইংলিশে
করে হাই-হ্যালো-বাই,
বাড়ি-গাড়ি ঝকঝকে
ভীনদেশী বিড়ি খায়।

তবু নাকি কাকাবাবু
রাত হলে কাবু বেশ,
কাকি মরে টেনশনে
শাদা হলো কালো কেশ।

কাকা বলে- ডাক্তার,
মরি মরি লাগে খুব;
ডাক্তার হেসে বলে-
মরণেই দিলে ডুব?

Advertisements

খোকা দেখে বিস্ময়ে / সাইফ আলি

টুন টুন টুনাটুনি
ডাকে বসে ডালটায়,
রোদ্দুর ঝিকিমিকি
দারূণ সকালটায়

কচি পাতা, ফুলখুকি
রোদ মেখে দুলছে,
জাল বুনে তার সাথে
মাকড়টা ঝুলছে।

খোকা দেখে বিস্ময়ে
বড়ো বড়ো করে চোখ,
লেগে থাক তার চোখে
সর্বদা এ আলোক।

হাতের ফেরে / সাইফ আলি

হাতের ফেরে দশ মজেছে পাঁচে
মনটা ফড়িঙ তিড়িং বিড়িং নাচে
ম্যাজিক মামু ম্যাজিক দেখায় দেখো
ঘা মেরে সব ছাগল চড়ায় গাছে।

হাতের ফেরে ফুল হয়ে যায় কাঁটা
বিপ্লবী হয় স্বার্থবাদী চাটা
ম্যাজিক মামু ম্যাজিক দেখায় দেখো
ঘা মেরে সব কলসি জোড়ায় ফাটা।

হাতের ফেরে কত্ত কিযে হয়
পোলায় ভোলে বাপের পরিচয়!
সামলে রাখো বুদ্ধি বিবেক জনাব,
এই আবেদন করছি সবিনয়।

সময়ের ছড়া-০৮ / সাইফ আলি

মগজ কলে দম দিতে তার
গাঞ্জা লাগে আটি আটি,
মহাজ্ঞানের ভান্ডারী সে
মানবতার সেবক খাটি!

সময়ের ছড়া-০৭ / সাইফ আলি

ছুডো ছুডো পোলাপাইন
রাজনীতিতে নাম লেখায়,
কথায় কথায় কেমুন লাগে
হল ছাড়নের ভয় দেখায়।

ডর লাগে!!
হল কি তুমার বাবার জাগা?
কাপছি ভীষণ; জ্বর লাগে!!!

ইচড়েপাকা দ্যাখলে তোগো
ক্যামন যেনো দরদ হয়,
এমনে করে পরজীবি কি
সত্যিকারে মরদ হয়?

সময়ের ছড়া-০৬ / সাইফ আলি

ছাত্র তুমি ছাত্র আছো?
বিবেক বেচে ওদের কথায়
সকাল বিকাল ক্যামনে নাচো?

সময়ের ছড়া-০৫ / সাইফ আলি

ভার্সিটিতে পইড়া হেতে
বিরাট কামের কাম করে,
চা দোকানের চান্দা তুলে
‘ভাই’ হিসেবে নাম করে।